1. mehedi22h@gmail.com : Mehedi Hasan : Mehedi Hasan
  2. ahmedbd3122@gmail.com : Ashik Ahmed : Ashik Ahmed
  3. ibrahimkholil607@gmail.com : Ibrahim kholil : Ibrahim kholil
  4. aburaian182@gmail.com : Raian Sakil : Raian Sakil
মাটির নিচে সন্ধান মিললো আরেক পৃথিবীর, যেখানে রয়েছে আকাশ, খাল, বিল, পাহাড় ও ভিন্ন আবহাওয়া, ছবি গুলি দেখলে চমকে যাবেন…। - নিউজ সাতক্ষীরা
শিরোনাম :
অপহরনের নাটক সাজাতে গিয়ে পুলিশের খাঁচায় বন্দী হলেন সাতক্ষীরার ৭ প্রতারক জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার্থীদের ৯ম শ্রেণিতে উত্তীর্ণের নির্দেশ চরম ঝুঁকিতে উপকূলীয় জেলার প্রায় পাঁচ কোটি মানুষ বাংলাদেশে ঢোকার অপেক্ষায় ১৬৫ ট্রাক ভারতীয় পেঁয়াজ শ্যামনগর ফুটবল একাডেমির পক্ষ থেকে এক প্রীতি ফুটবল টুর্নামেন্ট। শ্যামনগর ফুটবল একাডেমী নির্মানধীন কাজ চলছে আজ শ্যামনগর ফুটবল একাডেমির পক্ষ থেকে এক প্রীতি ফুটবল টুর্নামেন্ট। সাতক্ষীরায় ছাত্র-অধিকার পরিষদের পক্ষ থেকে বৃক্ষরোপণ রানার ভাবনা জুড়ে এএফসি কাপ/ কিংসকে আরো উঁচুতে নিতে চান রানা/ রানার জগত জুড়ে বসুন্ধরা কিংস আর একাডেমি শ্যামনগর ফুটবল একাডেমিতে ক্রীড়া সামগ্রী প্রদান করলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস.এম আতাউল হক দোলন।

মাটির নিচে সন্ধান মিললো আরেক পৃথিবীর, যেখানে রয়েছে আকাশ, খাল, বিল, পাহাড় ও ভিন্ন আবহাওয়া, ছবি গুলি দেখলে চমকে যাবেন…।

  • আজকের সময় : শুক্রবার, ২৯ মে, ২০২০
  • ৪১১ দেখা হয়েছে

মাটির নিচে সন্ধান মিললো গুহার শব্দটি শুনলে প্রথমে আমাদের কল্পনায় যে দৃশ্যটি ধরা পড়ে, মাটি বা পাথরের ঢাকা অন্ধকার কোন এক জগৎ।

কোথাও হয়তো ফাঁকফোকর দিয়ে দেখা মেলে সূর্য কিরণের এবং ভেতরের স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশ আর বিষাক্ত গ্যাসের উপস্থিতি। কিন্তু সম্প্রতি চীনের চঙকিং প্রদেশে আবিষ্কার হয়েছে এমন এক গুহা, আকাশে মেঘ এবং কুয়াশা রয়েছে, তেমনি এই গুহার ভিতরে রয়েছে আলাদা আকাশ। সেই আকাশে রয়েছে মেঘ ও কুয়াশা।

শুধু তাই নয়, গুহাটির মধ্য খাল, বিল, পাহাড় সহ রয়েছে আরো অনেক কিছু। চীনের এই গুহাটির নাম ইয়াং ওয়াং ডং। চংকিং প্রদেশের বাসিন্দারা অনেক আগে থেকে গোহাটি সম্পর্কে জানতেন। স্থানীয় বাসিন্দাদের গোহাটি সামান্য ভেতরে যাতায়াত ছিল। তবে তারা ভিতরে কোন দৃশ্য ধারণ করে বাইরে নিয়ে আসেন নি। আরে স্থানীয় বাসিন্দারা ছাড়া বাইরের কেউই তেমন যেতেন না গুহাটির মধ্য।

যে কারণে ইয়ার ওয়াং ডং গোহাটি সম্পর্কে মানুষ অজানা ছিল। গুহা বিশেষজ্ঞ এবং ফটোগ্রাফের সমন্বয়ে গঠিত একটি দল ইয়ার ওয়াং ডং গোপনীয়তা আবিষ্কার করেন এবং ভেতরে বেশ কিছু দুর্লভ ছবি তুলে নিয়ে আসেন।

অভিযাত্রীদের মতে, গোহাটির ভিতরে মেঘ, বালুকণা, জলীয়বাষ্প সহ রয়েছে আলাদা আবহাওয়া অনেকটা শীতল। আবার পাশাপাশি আর্দ্রতা ও শীতল।যে কারণে স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস গ্রহণ করতে অনেকটা কষ্টসাধ্য। গুহার ভিতরে যে খাল রয়েছে তা খুবই ভয়ংকর ও বিধ্বংসী।

কেননা এসব খালের জলেতে রয়েছে তীব্র স্রোত যা সহজে কাউকে ভাসিয়ে নিতে পারে। অভিযাত্রী দলের একজন সদস্য রবি সনের ভাষ্যমতে, এর আগে এত বিস্তৃত কোন গুহা আবিষ্কার করা সম্ভব হয়নি।

ইয়ার ওয়াং ডং এরমধ্যে রয়েছে অসাধারণ কিছু বিষয় যা সত্যি আমাকে অবাক করেছে। বিশাল এই গুহাটি প্রায় ৮২০ ফুট উঁচু। উপরের অংশের অর্ধেকটাই কুয়াশা এবং মেঘে ঢাকা। মাটির ভিতরে যে জল রয়েছে তা নোনতা স্বাদযুক্ত।

গোয়া শব্দটির সাথে একটু বেশি অ্যাডভেঞ্চার কাজ করে।আমাদের দেশে অবশ্য তেমন কোন বড় গুহা নেই যেগুলো আছে খুবই ছোট।

এখন পর্যন্ত আবিষ্কৃত পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গুহা হচ্ছে হাং সান এর থেকে কি ইয়ার ওয়াং ডং বড় কি না। হ্যাঁ বিষয়টি জানতে হলে আপাতত আরও কিছুদিন আমাদের অপেক্ষা করতে হবে।

ফেসবুকে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2019 newssatkhira.com
Site Customized By Mehedi Hasan