1. mehedi22h@gmail.com : admin :
  2. ibrahimkholil607@gmail.com : Ibrahim Hossain : Ibrahim Hossain
  3. rejoanullah668@gmail.com : rejoan ullah : rejoan ullah
শিরোনাম :
কলারোয়ায় একটি ভাঙ্গাড়ী দোকানে অগ্নিককান্ড কলারোয়ায় মোবাইলের ৭টি ব্রান্ড নিয়ে বাপ্পি টেলিকমের নতুন শো-রুম উদ্বোধন কলারোয়ায় বিভিন্ন অনিয়মের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ম্যারাথন ঢাকা ২০২১ বাবা অসুস্থ, সংসারের হাল ধরতে ভাঙা সাইকেলে করে মিষ্টি বিক্রি সপ্তম শ্রেণীর সুমনের সাতক্ষীরা’র কলারোয়া থানা পুলিশের অভিযানে মাদকসহ ৪ যুবক আটক কলারোয়ায় গৃহহীন দের গৃহ নির্মানে ব্যাপক অনিয়ম কিশোরীর পেটে থেকে বের হলো ৪৮ সেন্টিমিটার লম্বা চুল! টিকটিকির ভিডিও নিয়ে চর্মরোগ বিশেষজ্ঞদের সতর্কতা অন্তরঙ্গ দৃশ্যে কাজল ‘অন্যের স্ত্রী’ বিয়ে, নাসিরকে সাবেক প্রেমিকার অভিনন্দন

বাঘের শিকারে দুইজন মৎস্যজীবি,ফিরে এলেন মুসা

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৯ বার

ডেক্স রিপোর্টঃ
সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে নিহত দুই মৎস্যজীবীর মরদেহের সন্ধান এখনও মেলেনি। তবে জীবিত থাকা অপর মৎস্যজীবী মুসা বাড়িতে ফিরেছেন।
২৪ জানুয়ারি(রোববার)দুপুর ১২টার দিকে সীমান্তের মাওন্দি নদী পার হয়ে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ফরেস্ট স্টেশন এলাকা দিয়ে বাড়িতে ফেরেন ওই মৎস্যজীবী।

সুন্দরবন থেকে বাড়িতে ফেরা ওই মৎস্যজীবী আবু মুসা (৪১) সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নের পশ্চিম কৈখালী গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে।
নিহত অপর দুই মৎস্যজীবী হলেন, পশ্চিম কৈখালী গ্রামের কফিলউদ্দিনের ছেলে রতন (৪২) ও ওই গ্রামের মনো মিস্ত্রীর ছেলে মিজানুর রহমান (৪০)।
কৈখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম জানান, দুপুর ১২টার দিকে সীমান্তের মাওন্দি নদী দিয়ে মৎস্যজীবী আবু মুসাকে ভারত থেকে দেশে ফিরিয়ে এনেছেন এলাকাবাসী। সাতক্ষীরার কৈখালী ফরেস্ট স্টেশন এলাকার পাশ দিয়ে মাওন্দি দিয়ে তাকে ফিরিয়ে আনা হয়। স্থানীয় বাসিন্দা লতিফ, আরিজুল, আরশ খানসহ ৪-৫ জন তাদের একটি নৌকায় এলাকায় নিয়ে আসেন।
তিনি বলেন, বাঘের আক্রমণে নিহত অপর দুই মৎস্যজীবী রতন ও মিজানুর রহমানের মরদেহের কোনো হদিস এখনও মেলেনি।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে দুই মৎস্যজীবীর ওপর বাঘ আক্রমণ করে। নৌকায় করে প্রাণে রক্ষা পান আবু মুসা। পরবর্তীতে আবু মুসা কৈখালী সিমান্তের বিপরীতে ভারতের মধ্যে পুল্লাদ নামের এক ভারতীয় কাছে আশ্রিত ছিলেন দুই দিন।
বাঘের আক্রমণে নিহত মিজান ও রতন
কৈখালী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউল ইসলাম বলেন, বিজিবির সিওর মাধ্যমে ভারতীয় বিএসএফ কর্মকর্তাদের সঙ্গে অনেক যোগাযোগ করেছিলাম। তবে বাঘের আক্রমণে নিহত দুই মৎস্যজীবীর মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।ঘটনা তিনদিন গড়িয়েছে, আর সম্ভবনা নেই এমনই মনে হচ্ছে। জীবিত থাকা আবু মুসা ভারতীয় যে বাসিন্দার কাছে ছিলেন তিনি নৌকায় করে আমাদের দেশের মধ্যে পাঠিয়ে দিয়েছেন।
এ ব্যাপারে কৈখালী ফরেস্ট স্টেশন কর্মকর্তা মোবারক আলী ও সীমান্ত এলাকার নীলডুমুর ১৭ বিজিবির সিও ইয়াছিন চৌধুরীর সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও তারা ফোনকল রিসিভ করেননি।
তবে নীলডুমুর ১৭ বিজিবির সিও ইয়াছিন চৌধুরী আগে জানিয়েছিলেন, বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় পশ্চিম সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জের বিপরীতে ভারতীয় অংশে পাইজুরি খালে (ম্যাপে নেই) দুই মৎস্যজীবী বাঘের আক্রমণে নিহত হন। জীবিত থাকা আবু মুসার মাধ্যমে ঘটনাটি জানা গেছে।
মরদেহটি দুটি উদ্ধারের জন্য বিএসএফের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তারা উদ্ধারের চেষ্টা করছেন তবে এখনও মরদেহ দুটির কোনো সন্ধান মেলেনি। স্থানটি দুর্গম হওয়ায় উদ্ধার কাজ অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2019 news satkhira
Site Customized By NewsTech.Com